এই মুহূর্তে কলকাতা

নতুন একগুচ্ছ মেট্রো প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাস প্রধানমন্ত্রীর।


কলকাতা, ৬ মার্চ:- প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ কলকাতায় এক অনুষ্ঠান থেকে একগুচ্ছ নতুন মেট্রো প্রকল্প উদ্বোধন শিলন্যাস ও জাতির উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করেছেন। সকালে কলকাতার এসপ্লানেড মেট্রো স্টেশনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি দেশের প্রথম আন্ডারওয়াটার মেট্রো পরিষেবা সহ ১৫৪০০ কোটি টাকা মূল্যের পরিবহন প্রকল্পের সূচনা করেন। এর মধ্যে এরাজ্যের হাওড়া ময়দান থেকে এসপ্ল্যানেড মেট্রো পরিষেবা, কবি সুভাষ থেকে হেমন্ত মুখোপাধ্যায় পর্যন্ত মেট্রো পরিষেবা, জোকা-এসপ্ল্যানেড মেট্রো প্রকল্পের তারাতলা থেকে মাঝেরহাট অংশের ট্রেন চলাচলের সূচনা করেন তিনি। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী আজ ওই অনুষ্ঠান থেকে পুনে মেট্রোর রুবি হল ক্লিনিক থেকে রামওয়ারি অংশ, কোচি মেট্রো প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ের সম্প্রসারণ, আগ্রা মেট্রোর তাজ ইস্ট গেট থেকে মনকামেশ্বর পর্যন্ত অংশের এবং দিল্লি- মিরাট আরআরটিএস করিডরের দুহাই- মোদিনগর উত্তর শাখার উদ্বোধন করেন। পাশাপাশি তিনি পুনে মেট্রো প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ের সম্প্রসারণ প্রকল্পের শিলান্যাস করেন।

অনুষ্ঠানের সূচনায় প্রধানমন্ত্রী মেট্রোরেলের সংগ্রহশালা ঘুরে দেখেন এবং দেশের প্রথম আন্ডারওয়াটার মেট্রো প্রকল্পের কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন। তাঁর সামনে এই প্রকল্পের উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য গুলি তুলে ধরা হয়। পরে ছাত্র-ছাত্রী,যুব প্রজন্মের সদস্য এবং মেট্রো রেলের কর্মীদের সঙ্গে তিনি ওই পথে মেট্রো সফর করেন। এসপ্ল্যানেড, হাওড়া এবং হাওড়া ময়দান স্টেশনের বাইরে বহু উৎসাহী জনতা প্রধানমন্ত্রীকে দেখতে ভিড় জমিয়েছিলেন। ওই অনুষ্ঠানের শেষে প্রধানমন্ত্রী বারাসাতের উদ্দেশ্যে রওনা হন। উল্লেখ্য কলকাতা মেট্রোর ইস্ট ওয়েস্ট করিডরের হাওড়া ময়দান -এসপ্ল্যানেড পর্যন্ত ১৬.৬ কিলোমিটার অংশের ৫২০ মিটার অংশ গেছে হুগলি নদীর তলা দিয়ে। যা পার হতে মাত্র ৪৫ সেকেন্ড সময় লাগবে বলে মেট্রোলেলের তরফে জানানো হয়েছে। ওই শাখার হাওড়া মেট্রো স্টেশন এই মুহূর্তে দেশের গভীরতম মেট্রো স্টেশন। নতুন এই মেট্রো প্রকল্প গুলির সূচনার ফলে কলকাতা সহ দেশের বিভিন্ন শহরে যোগাযোগ ব্যবস্থায় নতুন বিপ্লব আসবে বলে মনে করা হচ্ছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাজ্যপাল ডক্টর সি ভি আনন্দ বোস, রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী, সাংসদ সুকান্ত মজুমদার সহ বহু বিশিষ্ট ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন।