এই মুহূর্তে জেলা

অভিনব উদ্যোগ। হাওড়ার বালিতে পার্টি ফান্ড থেকে ভর্তুকি দিয়ে গণপরিবহনের ব্যবস্থা করল সিপিএম।

হাওড়া, ৬ জুন:- নিজেদের পার্টি ফান্ড থেকে ভর্তুকি দিয়ে গণ পরিবহনের ব্যবস্থা করল সিপিএম। বর্তমান পরিস্থিতিতে সাধারণ যাত্রীদের পাশে দাঁড়াতেই এই অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন হাওড়ার বালির সিপিএম কর্মীরা। আজ শনিবার সকালে বেলুড়ের নেতাজি পার্ক থেকে হাওড়া স্টেশন পর্যন্ত এই জনতা পরিবহন চালু করেন সিপিএম কর্মী সদস্যরা। প্রাথমিকভাবে একটি টোটোতে দু’জন করে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এদিন যাত্রীদের হাতে প্রথমে স্যানিটাইজার দিয়ে জীবাণুমুক্তকরণ করা হয়। ইতিমধ্যেই আনলক-১ এর সময় গণপরিবহন চালু হয়েছে সরকারি নির্দেশে। সিপিএমের অভিযোগ, তা সত্বেও রাস্তাঘাটে সরকারি, বেসরকারি বাস বা অন্যান্য যানবাহন প্রায় অমিল। আর এই সুযোগে একশ্রেণীর টোটো, অটো চালকরা চড়া ভাড়া নিচ্ছেন যাত্রীদের কাছ থেকে। বেলুড় বাজার থেকে হাওড়া পর্যন্ত চার কিলোমিটার ভাড়া জনপ্রতি প্রায় ৫০টাকাও নিচ্ছেন অনেকে। ফলে অসুবিধায় পড়ছেন যাত্রীরা। এত টাকা গুনে অনেকেই গন্তব্যে যেতে সমস্যায় পড়ছেন। তাদের সেই অসুবিধার কথা সরকারের কাছে তুলে ধরার জন্যই এবার মাঠে নামল বালি সিপিএম।

নিজেদের পার্টি ফান্ড থেকেই টোটো চালকদের ভর্তুকি দিয়ে যাত্রীদের থেকে মাত্র ১০টাকা জনপ্রতি নিয়ে হাওড়ায় পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন বাম সংগঠন সিপিএম। হাওড়া জেলা সিপিআইএমের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য শঙ্কর মৈত্র বলেন, এখন এই আনলক-১ পর্বে আমরা দেখতে পাচ্ছি, অফিসকাছারি সব খুলে গেছে। কিন্তু যাত্রী পরিবহনের উপযুক্ত ব্যবস্থা নেই। সরকার কোনও উদ্যোগ নিচ্ছে না। গণপরিবহনে যে অব্যবস্থা চলছে তা থেকে কিছুটা সুরাহা দেওয়ার জন্য আমরা আমাদের পার্টি ফান্ড থেকে চেষ্টা করছি। টোটো চালকদের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। ওনারাও এগিয়ে এসেছেন। সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা প্রতি গাড়িতে দু’জন করে যাত্রী তোলার ব্যবস্থা করেছি। যাত্রীদের হাত জীবাণুমুক্ত করে হাওড়া পর্যন্ত পাঠানোর উদ্যোগ আমরা নিয়েছি। অতিরিক্ত ভাড়ার বিনিময়ে নয়, মাত্র দশ টাকা ভাড়ার বিনিময়ে যাত্রীরা হাওড়া পৌঁছতে পারছেন। বাকিটা আমরা ভর্তুকি দিচ্ছি। আমরা চাই মানুষ যাতে পরিষেবা পায়। তাই আমাদের পার্টি চেষ্টা করছে মানুষের পাশে দাঁড়াতে। আমাদের দাবি, সরকার ন্যায্য ভাড়ায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহনের ব্যবস্থা করুক। আমরা চাই সরকার এগিয়ে আসুক। আমরাও সহযোগিতা করতে চাই।