এই মুহূর্তে কলকাতা

রাজ্যের লিজে নেওয়া খাস জমি ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রসেসিং ফ্রি বাধ্যতামূলক।


কলকাতা, ২ মে:- রাজ্যের লিজে দেওয়া খাস জমি ব্যাঙ্কে বন্ধক রেখে ঋণ পাওয়ার জন্য সরকারের অনুমতি নিতে গেলে এবার থেকে ‘‌প্রসেসিং ফি’‌ দিতে হবে। মঙ্গলবার নবান্নে রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত অনুমোদিত হয়েছে। এর ফলে রাজ্য সরকারের আয় বাড়বে। বৈঠকে স্থির হয়েছে, শুধু বন্ধক দেওয়ার ক্ষেত্রেই নয়, লিজে নেওয়া জমি হস্তান্তর করতে গেলেও রাজ্যের অনুমতি পেতে গেলে ফি দিতে হবে। নবান্ন সূত্রে খবর, রাজ্যের খাস জমি শিল্প, আবাসনসহ বাণিজ্যিক কারণে আইন মেনে লিজ দেওয়া হয়। এই লিজ দেওয়া হয় ৯৯ বছরের জন্য। যিনি জমি লিজ নিচ্ছেন তাঁকে এই জমিতে বাণিজ্যিকভাবে কিছু করার জন্য অনেক সময়ে ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিতে হয়। সেক্ষেত্রে লিজে নেওয়া জমিও অনেক সময়ে বন্ধক রাখতে হয়।

যেহেতু সরকারের কাছ থেকে এসি জমি লিজে নেওয়া তাই বন্ধন দেওয়ার আগে সরকারের অনুমতি নেওয়া নিয়ম। এতদিন ভূমি দফতর থেকে এই অনুমতি বিনমূল্যেই দেওয়া হত। এবার থেকে জমির পরিমান অনুযায়ী ফি বাবদ টাকা ধার্য্য করা হবে। সেক্ষেত্রে ১ হাজার থেকে ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত সরকারকে দিতে হতে পারে। মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনুমোদন মিলল। এবার কোন জমির ক্ষেত্রে কী পরিমান প্রসেসিং ফি দিতে হবে তা ঠিক করবে ভূমি দফতর। অনেক ক্ষেত্রে জমি লিজ নিয়ে কারখানা করার পর তা চালাতে না পেরে অনেকেই হস্তান্তর করে দিতে চান। সেক্ষেত্রে লিজ প্রাপকের নামেরও পরিবর্তন করতে হবে। এই হস্তান্তর ও নাম পরিবর্তনের অনুমতি সরকার এতদিন বিনামূল্যেই দিত। এবার থেকে এই কাজের জন্যও প্রসেসিং ফি দিতে হবে। শুধু কারখানা নয়, সরকারের থেকে লিজে নেওয়া জমির ওপর গড়ে তোলা বাণিজ্যিক সংস্থা বা বাড়ি হস্তান্তরের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য হবে। এই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য, কিছুদিনের মধ্যেই ভূমি দপ্তর থেকে প্রকাশ করা হবে।