এই মুহূর্তে জেলা

টেরাকোটার কাজ করে সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়েছে পোড়া মাটির গ্রাম পাঁচমুড়া।

বাঁকুড়া, ১৪ ডিসেম্বর:- পোড়া মাটির গ্রাম পাঁচমুড়া। বাঁকুড়া জেলার এই গ্রাম টেরাকোটার কাজ করে শুধু মাত্র ভারতবর্ষ নয় সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়েছে। মাটির উপর নকশা বানিয়ে তাকে নির্দিষ্ট পদ্ধতিতে আগুনে পুড়িয়ে টেরাকোটায় রূপ দেওয়ার পদ্ধতি এই পাঁচমুড়া তেই প্রথম। মূলত এখানে হাতি ঘোড়ার কাজ হত। টেরাকোটার আদি ঘরানা থেকে বেরিয়ে বেশ কিছু বছর যাবৎ মাটির গয়না থেকে শুরু করে মাটির টাইলস তৈরি তে হাত লাগিয়েছিলেন এখানের মৃৎ শিল্পীরা। বরাতও মন্দ নেই।মানুষ বরাবর নতুনের কদর করে বেশি। এবারে একেবারে তাক লাগিয়ে অন্যভাবনায় টেরাকোটা কে তুলে ধরছেন মৃৎ শিল্পীরা। প্রতিবছরই ক্যালেন্ডার তৈরি করেন বিকাশ বাবু। এবছর তার মাথায় আসে এক ইনোভেটিভ আইডিয়া। টেরাকোটার টেবিল ক্যালেন্ডার।

এই ধারণাকে বাস্তবায়নের জন্য তিনি প্রোপোশাল পাঠা বেশ কয়েকটি সংস্থা কে সেখানে থেকে সম্মতি আসলেই তিনি তার রূপায়নের চিন্তা করেন। চলে যান মৃৎশিল্পী শম্ভুবাবুর কাছে সেইখানেই ঠিক হয় ডিজাইনকে কিভাবে টেরাকোটাতে রূপ দেওয়ার পদ্ধতি। এই টেরাকোটার টেবিল ক্যালেন্ডার বানানোর সমস্ত দায়িত্ব নিয়েছেন পাঁচমুড়ার স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলা মৃৎশিল্পীরা। একেবারে নতুন কাজে হাত লাগিয়ে তারা আশার আলো দেখছেন। শিল্পীরা জানান,এই ধরনের নতুন কাজ পেলে চিরাচরিত প্রথা থেকে বেরিয়ে এসে কাজ করলে কাজার বাজার বাড়বে এবং মানুষের চাহিদাও বাড়বে। জানা গেছে, পুরানো চিরাচরিত চলে আসা টেরাকোটার আদল থেকে বেরিয়ে এসে বিভিন্ন ইনোভেটিভ কাজে হাত লাগানোর জন্য এলাকায় তৈরি হতে চলেছে একটি ইন্সটিটিউট। আগামী দিন এই পোড়ামাটির গ্রাম নিসন্দেহে নতুন কিছু উপহার দিতে চলেছে শিল্পপ্রেমী মানুষদেরকে।