এই মুহূর্তে কলকাতা

বর্ষায় বন্যা রুখতে প্রশাসনকে তৎপর হওয়ার নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর।


কলকাতা,৩০ এপ্রিল:- আসন্ন বর্যার মরশুমে যাতে রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতি না তৈরি হয় তা নিশ্চিত করতে এখন থেকে প্রশাসনকে তত্পর হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গত সপ্তাহে নবান্নে প্রশাসনিক বৈঠক থেকে বাঁধ ও খাল সংস্কারে এখনই দ্রুত প্রস্তুতির নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই মতো ঘূর্ণিঝড়, বন্যা ও ধসের মতো প্রাকৃতিক বিপর্যয় মোকাবিলায় প্রস্তুতি বৈঠক ডেকেছেন রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। আগামী মঙ্গলবার নবান্ন সভাঘরে এই বৈঠকে হবে। সেখানে ডিভিসি, আলিপুর আবহাওয়া অফিস, কলকাতা বন্দর, জল কমিশন, সেনা-সহ সংশিষ্ট কেন্দ্রীয় প্রতিষ্ঠান ও রাজ্য সরকারের দফতরগুলিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। বন্যা ও সাইক্লোনের পূর্বাভাস ও সেই মতো ত্রাণ ও পুনর্গঠনের প্রস্তুতি নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হবে। মে মাসের মাঝামাঝি একটা সাইক্লোন আসতে পারে বলে ইতিমধ্যেই জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

তাই যাবতীয় প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে চাইছে রাজ্য সরকার। প্রতিবেশী রাজ্যগুলির বন্যা পরিস্থিতিতে নজর রাখার জন্য আগেই সেচ দফতরকে নির্দেশ দিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। পাশাপাশি জলাধারে জলের পরিমাণ নিয়ে ডিভিসির সঙ্গেও নিয়মিত যোগাযোগ রাখার কথা বলা হয়েছে। সে জন্য ১ জুন বর্ষা নামার আগেই কন্ট্রোল রুম খোলার নির্দেশ দিয়েছে সেচ দফতর। মঙ্গলবারের বৈঠকে এ ব্যাপারে ডিভিসি কর্তৃপক্ষ ও জল কমিশনে’র সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করতে চান মুখ্যসচিব। যাতে জল ছাড়ার বিষয়টি অনেক আগে থেকে রাজ্যের নজরে থাকে। জেলাশাসকদের কাছেও এই তথ্যগুলি থাকা প্রয়োজন। বিশেষত যে সব জলাধার থেকে জল ছাড়ার ফলে প্লাবনের সম্ভাবনা বেশি, সেগুলির সম্বন্ধে আগাম তথ্য থাকা জরুরি। তাই সব দিক বিচার করে আগেভাগে বৈঠকে বসছে নবান্ন।