এই মুহূর্তে জেলা

করোনা আবহে সামাজিক দুরত্বকে জলাঞ্জলি দিয়ে অস্ত্র নিয়েই প্রকাশ্যে থানা ঘেরাও বিজেপির।


উত্তর দিনাজপুর , ২৫ আগস্ট:- ধারালো অস্ত্র আর তীর ধনুক নিয়ে সশস্ত্র আন্দোলন করলেন বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা। রাজ্যে সুশাসনের প্রতিষ্ঠার দাবিতে বিজেপির রাজ্য সাধারন সম্পাদক সায়ন্তন বসুর নেতৃত্বে উত্তর দিনাজপুর জেলার করনদিঘী থানায় সশস্ত্র আন্দোলনের সাক্ষী রইলেন সাধারন মানুষ। রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশকে কার্যত বুড়ো আঙুল দেখিয়ে জঙ্গী আন্দোলনে শামিল হলেন বিজেপির রাজ্য শীর্ষ নেতা থেকে জেলার নেতা কর্মীরা। বহু বিজেপি কর্মীর হাতেই এদিন তীর ধনুক সহ ধারালো অস্ত্র দেখা যায়। অস্ত্র হাতে নিয়েই করনদিঘী থানার পুলিশ ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করে বিজেপি কর্মীরা। এর পাশাপাশি করোনা আবহে রাজনৈতিক সমাবেশ বাতিল হওয়া সত্বেও হাজার হাজার সশস্ত্র বিজেপি কর্মী সমর্থক করনদিঘী থানা ঘেরাও বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করে।

বিজেপি কর্মী সমর্থকদের জঙ্গী আন্দোলনে ঘন্টার পর ঘন্টা অবরুদ্ধ হয়ে থাকে কলকাতা-শিলিগুড়ি গুরুত্বপূর্ণ ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক। না কোনও মাস্ক, না কোনও সামাজিক দূরত্ব বিধি মানা। হাজার হাজার বিজেপি কর্মী সমর্থকদের জমায়েতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে উত্তর দিনাজপুর জেলার জনজীবন। বিপর্যয় মোকাবিলা আইনকে লঙ্ঘন করে হাজার হাজার কর্মী সমর্থকদের জমায়েত নিয়ে বিজেপির রাজ্য সাধারন সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেন, পুলিশ এর আগেও তাঁর নামে কেস দিয়েছে। তা নিয়ে তিনি কোনও পাত্তা দিতে চাননা। তাঁর পাল্টা অভিযোগ, পুলিশের কাজ