এই মুহূর্তে জেলা

বেলা বাড়তেই ভিড় ব্যান্ডেল চার্চে।


হুগলি , ২৫ ডিসেম্বর:- হালকা শীতের আমেজে সোমবার বড়দিনের সকাল থেকেই ব্যান্ডেল চার্চে উপচে পড়ছে ভিড়। আট থেকে আশি, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে মানুষ বড়দিনের আনন্দে গা ভাসাতে ভিড় জমান ঐতিহাসিক ব্যান্ডেল চার্চে।ভিড় ও দুর্ঘটনার হাতছানি এড়াতে এবারেও ২৫শে ডিসেম্বর ও ১লা জানুয়ারি চার্চের প্রবেশদ্বার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে চার্চ কর্তৃপক্ষ।তাতেই মন খারাপ ব্যণ্ডেল চার্চে বেড়াতে আসা সর্ব সাধারণের।তাই বাইরে থেকেই চার্চ দেখে ফিরে যান।কেউ আবার নিছক ছুটির আনন্দ চার্চের বাইরে থেকেই উপভোগ করেছেন।

কেউ কেউ আবার নতুন করে করোনা সংক্রমণের ভয়ে মুখে মাস্ক পড়েছেন।সাতগাছিয়া থেকে চার্চে বেড়াতে এসে ছিলেন রাখী সাউ।তিনি বলেন,আমরা জানতাম না এ দিন চার্চ বন্ধ।তাই মন খারাপ হয়েছে।কিন্তু বাইরে অনেক মানুষের সঙ্গে দেখা হয়ে মন খারাপ উধাও হয়ে গিয়েছে।তবে এখনই করোনা নিয়ে দুশ্চিন্তা করতে চাই না।উল্টোডাঙা থেকে এসে ছিলেন রীনা মুখোপাধ্যায়।তিনি বলেন,চার্চ বন্ধ থাকায় প্রভুর দেখা পেলাম না।দু’বছর আসতে পারিনি।

এবারে যদিও এলাম। কিন্তু চার্চ বন্ধ ছিল তাই কিছুটা খারাপ লাগছে।যাদবপুর থেকে এসে ছিলেন জয়া চট্টোপাধ্যায় ও দেবাশিষ চট্টোপাধ্যায়। তাদের কথায় করোনার সংক্রমণ রোধ মানুষের সচেতনতা বাড়াতে পাড়লেই করোনার বিরুদ্ধে লড়তে পাড়ব।তবে বড়দিনের উৎসবে মেলা বসেছে গির্জা চত্বরে।মাটির ও ফাইবারের মডেল দিয়ে তৈরি গোশালা ও যীশুর জীবনচক্র ফুটিয়ে তুলেছে গির্জা কর্তৃপক্ষ।( বড়দিনে জমজমাট ব্যাণ্ডেল গির্জা।