এই মুহূর্তে জেলা

“দিদির সুরক্ষা কবচ” প্রকল্প কর্মসূচি চলছে হাওড়াতেও।


হাওড়া, ৬ জানুয়ারি:- “দিদির সুরক্ষা কবচ” প্রকল্প মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে রাজ্যের প্রতিটি বিধানসভা এলাকাতেই বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। হাওড়াতেও শুরু হয়েছে “দিদির সুরক্ষা কবচ” কর্মসূচি। মধ্য হাওড়া, ডোমজুড়ের পর শুক্রবার সকালে উত্তর হাওড়ায় তৃণমূল বিধায়ক গৌতম চৌধুরীর উদ্যোগে এই কর্মসূচি নেওয়া হয়। দুপুরে দক্ষিণ হাওড়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়িকা নন্দিতা চৌধুরীর উদ্যোগেও একই কর্মসূচি পালিত হয়। এদিনই বালি বিধানসভাতেও বিধায়ক ডাঃ রাণা চট্টোপাধ্যায়ের উদ্যোগে এই কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। লক্ষ্মীর ভান্ডার, কৃষক বন্ধু, সামাজিক সুরক্ষা যোজনা, বিধবা ভাতা, মানবিক পেনশন, জয় বাংলা ( জয় জোহার ও তপশিলি বন্ধু ), যুবশ্রী, স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড, কন্যাশ্রী, ঐক্যশ্রী, শিক্ষাশ্রী, খাদ্যসাথী, স্বাস্থ্যসাথী, বাংলার আবাস যোজনা, নিজ গৃহ নিজ ভূমি প্রমুখ প্রকল্প এই “দিদির সুরক্ষা কবচে” স্থান পেয়েছে। দিদির বার্তাবাহক হিসেবেই দলের নির্দেশে এই কর্মসূচি নিচ্ছেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রত্যেক বিধায়ক। এদিন দক্ষিণ হাওড়ার তৃণমূল বিধায়িকা নন্দিতা চৌধুরী বলেন, “শিক্ষা থেকে চাকরি, স্বাস্থ্য পরিষেবা থেকে আবাসন এবং খাদ্য থেকে সামাজিক সুরক্ষা ; সব ক্ষেত্রেই এমন কিছু প্রকল্প রাজ্য সরকার তৈরি করেছে যা মানুষের জীবনকে একটি সামগ্রিক নিরাপত্তার মধ্যে রাখবে।

এই প্রকল্পেরই নাম দেওয়া হয়েছে “দিদির সুরক্ষা কবচ”। এই সুরক্ষা কবচের মধ্যে এমন ১৫টি মূল প্রকল্প রয়েছে যা মানুষের জীবনের সামগ্রিক মানোন্নয়নের জন্য সহায়তা করবে। “দিদির সুরক্ষা কবচ” প্রকল্প মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে রাজ্যের প্রতিটি বিধানসভা এলাকায় ইতিমধ্যেই বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। দক্ষিণ হাওড়াতেও শুরু হয়েছে “দিদির সুরক্ষা কবচ” কর্মসূচি। গত ২০১১ সাল থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উদ্যোগ নিয়ে বাংলার প্রতিটি ঘরে ঘরে বিভিন্ন উন্নয়নের কাজ করেছেন। গত ২ জানুয়ারী ‘দিদির দূত’ নামের একটি অ্যাপ এবং ১৫টি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা যা আমরা মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পারি সেই নির্দেশ ওনারা আমাদের দিয়েছেন। আমরা সেই নির্দেশকে মাথায় রেখে এই পরিষেবা ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার প্রচেষ্টা শুরু করেছি। সারা দেশে কোনও রাজনৈতিক দল এখনও পর্যন্ত এইভাবে কেউ করেনি। যাতে এই পরিষেবা সকলে পেতে পারে সেই চেষ্টা করা হবে”। দক্ষিণ হাওড়ায় এদিনের কর্মসূচিতে বিধায়িকা নন্দিতা চৌধুরী ছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সৈকত চৌধুরী, পার্থ বোস, অয়ন বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রিতম দাস প্রমুখ নেতৃত্ব।