এই মুহূর্তে জেলা

স্টাফ ট্রেনে অবৈধ যাত্রীদের উঠতে বাধা। লিলুয়া স্টেশনে উত্তেজনা।


হাওড়া , ১২ অক্টোবর:- কোভিড পরিস্থিতিতে এখনও লোকাল ট্রেন চালু না হওয়ায় সমস্যায় পড়া যাত্রীরা প্রায় প্রতিদিনই উঠে পড়ছেন রেলকর্মীদের জন্য নির্দিষ্ট বিশেষ ট্রেনে। রেলের তরফ থেকে বারবার বলা হচ্ছে এই স্টাফ ট্রেন কেবল রেলের কর্মীদের জন্য নির্দিষ্ট। কিন্তু সেই নিয়ম না মেনে প্রতিদিনই যাত্রীদের একাংশ উঠে পড়ছেন এই স্টাফ ট্রেনে। যা নিয়ে বিস্তর ঝামেলার সৃষ্টি হচ্ছে। সোমবার সপ্তাহের প্রথম দিনে হাওড়ার লিলুয়া স্টেশনে স্টাফ ট্রেনে উঠতে গেলে যাত্রীদের সঙ্গে টিকিট পরীক্ষক ও আরপিএফের বচসা বেধে যায় বলে অভিযোগ। লিলুয়া স্টেশনে যাত্রীরা বিক্ষোভ দেখায়। ভাঙচুরের চেষ্টা করা হয় বলেও অভিযোগ। রেলওয়ে স্টাফেদের জন্য এই স্টাফ ট্রেন চালানো হয়।

সেই ট্রেনে যাত্রীরা উঠলে গেলে বিভিন্ন স্টেশনে জরিমানাও করা হয়। সোমবার সকালে লিলুয়া স্টেশনে এই সকল অবৈধ যাত্রীদের বাধা দেওয়া হলে গন্ডগোল বেধে যায়। এদিকে, জিআরপি সূত্রে জানা গেছে, সে সময় ওই স্টেশনে টিকিট পরীক্ষকরা বিশেষ চেকিং করছিলেন। তখনই অবৈধ যাত্রীদের সঙ্গে তাদের বচসা শুরু হয়। উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে সকাল ৮টা নাগাদ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। জানা গেছে বাজার, দোকানপাট, অফিস খুলে যাওয়ায় প্রতিদিনই প্রচুর মানুষ শহরে আসছেন। হাওড়া স্টেশনে অতি নজরদারির কারণে অনেকেই লিলুয়া স্টেশন ব্যবহার করছেন। এদিন আচমকাই লিলুয়া স্টেশনে চেকিং চলছিল। তখনই ঘটে ঘটনা। তবে জিআরপি দাবি করেছে কোনও অবরোধ হয়নি। উল্লেখ্য, লোকাল চালু না হলে যাত্রীদের ভোগান্তি দিনে দিনে বাড়বে শুধু তাই নয় তার সঙ্গে আইনশৃঙ্খলারও সমস্যা দেখা দিতে পারে। শহরতলির লোকাল ট্রেন চালু না হলে এই সমস্যার সুরাহা হওয়া সম্ভব হবে না।