এই মুহূর্তে জেলা

কর্মিদের বঞ্চিত করে কেউ যদি পার্টি থেকে করে খায় প্রয়োজনে কর্মীরা তাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করে দেবে – উত্তরপাড়ার বিস্ফোরক বেচারাম মান্না।


হুগলি , ১১ অক্টোবর:- কয়েকদিন আগে তৃনমূল জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন উত্তরপাড়ার বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল। সভাপতি দিলীপ যাদবের জন্য দলের মধ্যে উপ দল মাথা চারা দিচ্ছে এমন অভিযোগ করেছিলেন। আজ প্রবীর বাবুর বিধানসভা ক্ষেত্রে তৃনমূলের দলীয় কর্মি সম্মেলনে এসে হরিপালের বিধায়ক বেচারাম মান্না নিশানা করলেন সেই জেলা সভাপতিকেই। বেচারাম বলেন, রাজনৈতিক দূর্বিত্যায়ন থেকে সতর্ক থাকতে হবে। কেউ যদি পার্টি থেকে করে খেয়ে কর্মিদের বঞ্চিত করে প্রয়োজন পরলে কর্মিরা তাকে ঘার ধাক্কা দিয়ে বের করে দেবে। সেই পরিবেশ হুগলি জেলার মধ্যে তৈরী হচ্ছে।

সিঙ্গুর আন্দোলনে অনেক নেতাকে দেখেছি (মঞ্চে বসা জাঙ্গীপাড়ার বিধায়ক স্নাহাশিষ চক্রবর্তীকে দেখিয়ে বলেন) যারা পুলিশের লাথি খেয়েছে চশমার কাঁচ ভেঙে গেছে। আর সেইসব নেতাকেও দেখেছি উত্তরপাড়ার যারা সেদিন পুলিশের কথা শুনে মমতা ফেলে রেখে পালিয়ে এসেছিলো। এই রকম নেতাদের চিহ্নিত করতে হবে। সেদিন মমতার সঙ্গে স্নেহাশিষ চক্রবর্তী পিনাকী ধামালীরা ছিলো। প্রবীর ঘোষাল তখন সাংবাদিক, তার কলমের খোঁচায় মমতার বিরুদ্ধে হওয়া অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছেন। আর কল্যাণ বন্দোপাধ্যায় ছিলেন সে সময় সিঙ্গুরের জন্য মামলা লড়েছেন। এক কথায় অনেকেই ছিলেন। কিন্তু জেলা সভাপতি দিলীপ যাদব ? তার নামও উল্লেখ করেননি বেচারাম।