এই মুহূর্তে জেলা

শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত বলাগড়, ভাঙচুর বিধায়ক কার্যালয়, সদস্যর বাড়ি।


হুগলি, ৪ জানুয়ারি:- গতকাল বিধায়ক যুব তৃণমূলের নেত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করেছিলেন। তার দেহরক্ষী তুলে নেওয়ার বিষয়ে রুনাকে দায়ী করেছিলেন। তার জবাব দিয়েছিলেন রুনা। বিধায়ক মনোরঞ্জন বেপারী রুনা খাতুনকে অশালীন ভাষায় আক্রমণ করেন বলে অভিযোগ। এরপরেই গতকাল গভীর রাত্রে জিরাটের আহমেদপুরে কার্যালয় ভাঙচুর চলে ।কার্যালয়ে থাকা টেবিল, চেয়ার ভাঙচুর হয় ও দলীয় পতাকা ছিড়ে ফেলে দেওয়া হয় রাস্তায়। শুধু তাই নয় বিধায়ক কার্যালয়ে কাদা লেপে দেওয়া হয়। রাতেই বিধায়ক ফেসবুকে লেখেন রুনা খাতুনের লোকজন তার অফিস ভাঙচুর করছে। তিনি বলাগড়ে এসে তার জবাব দেবেন।

বিধায়কের অফিস থেকে আগামী সাত তারিখে ফেসবুক লাইভ করে শেষ জবাব দেবেন বলে জানিয়েছিলেন বিধায়ক। সেই অফিসই ভাঙচুর করে, তার ফেসবুক লাইভ বানচাল করার চেষ্টা করা হয়। বিধায়ক কার্যালয় থেকে কিছুটা দূরেই আসানপুর গ্রামে জিরাট পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্য চম্পা মুখার্জির বাড়ি। সেই সদস্যের বাড়িতেও হামলা চালায় 30 থেকে 40 জন। ভাঙচুর করা হয় জানলা, দরজা। চম্পার স্বামী সুরজিৎ মুখার্জি বিধায়ক ঘনিষ্ঠ বলে এই পরিচিত। তাকেও ঘর থেকে টেনে উঠুনে ফেলে মারধর করা হয়। মোবাইল কেড়ে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

চম্পার অভিযোগ, রুনা খাতুন এর নেতৃত্বে এই আক্রমণ হয়েছে। রুনা ছাড়াও তার স্বামী সিজা কামালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান অরিজিৎ দাস, জিরাট পঞ্চায়েতের প্রধান তপন দাস এই হামলায় ছিলেন। তৃণমূলের এই অন্তরদ্বন্দ্বে ময়দানে নেমে পড়ে বিজেপি। বিভিন্ন জায়গায় তারা পোস্টারিং করে। বিধায়ক পালিয়েছে গোষ্ঠী কোন্দল সামাল দিতে পারছে না তাই উপনির্বাচন করা হোক। এমনই দাবি করে পোস্টার মারা হয়। সাধারণ মানুষ পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। বিজেপি নেতা চিরঞ্জিত রায় জানান, বিষয়টা মারামারি নিয়ে নয়, বিষয়টা হলো বলাগরের মানুষ তাদের কাছ থেকে কি পরিষেবা পাচ্ছে।

তাদের নিজেদের দলের লোকেরাই সুরক্ষিত নয়। একে অপরের কে মারধর করছে। এরা বলাঘরের মানুষকে কি সুরক্ষা দেবে। ভারতীয় জনতা পার্টি পোস্টারিং এ বিশ্বাসী নয়। এটা তাদের দলের অন্তরদন্দ। আমাদের দলের পক্ষ থেকে এরকম কোন নির্দেশ নেই পোস্টারিং করার। বলাকরের মানুষ ঠকেছে, পরিযায়ীর মত কলকাতা থেকে বসে ফেসবুক লাইভ করেন। বিধায়কের কাছ থেকে কোন পরিষেবা পাওয়া যায় না। তাই উপনির্বাচন হলে খারাপ হয় না।