এই মুহূর্তে জেলা

প্রাণী চোরাচালানকারীদের হামলা পরিবেশ প্রেমীর উপর।


হাওড়া, ৩ জানুয়ারি:- প্রাণী চোরাচালানকারীদের হামলা পরিবেশ প্রেমীর উপর। ওই ঘটনায় গুরুতর জখম হন শুভঙ্কর কোলে নামের এক পরিবেশ কর্মী। হাওড়ার পাঁচলা থানায় এই ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পাঁচলার জুজারসাহা কুলডাঙায় সোমবার রাতে ওই হামলার ঘটনা ঘটে। অভিযোগ, বেশ কয়েকদিন ধরে এলাকায় বন্যপশু ও পাখি ধরে পাচারের চেষ্টা চালাচ্ছিলো কিছু চোরাচালানকারী। বন দফতরের সাহায্যে চোরাচালান পাকড়াও করে শুভঙ্কর ও পরিবেশকর্মীরা। তারপরেই এই হামলা বলে দাবি করেছেন শুভঙ্কর। আক্রান্ত শুভঙ্কর কোলে বলেন, সোমবার সন্ধ্যা প্রায় সাড়ে ৭টা নাগাদ বাজারের দিকে গিয়েছিলাম। প্রায় ৯টা নাগাদ ওখান থেকে ফেরার সময় ২জন গাড়ি থেকে নামিয়ে আমায় বেধড়ক মারধর করে।

আমার কাছ থেকে ফোনটা কাড়তে গেলে কোনও রকমে ছুটে পালাই। যারা মেরেছে তাদের মধ্যে ১জন পাখি ব্যবসায়ী। সে বিদেশি পাখি ছাড়াও দেশি শালিক, টিয়া বিক্রি করে। গত ২৩ আগস্ট একটা স্ট্রিং অপারেশন করেছিলাম। বন দপ্তরকে নিয়ে সেই অপারেশন আমিই করি। এরপর ওই পাখি বিক্রেতা আটক হয়। রাতেই ওই পাখি বিক্রেতাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এতদিন পর ওই পাখি ব্যবসায়ী আমার উপর আক্রমণ করবে বোঝা যায়নি। এদিকে, পরিবেশ কর্মী তথা আক্রান্ত শুভঙ্করের বন্ধু শুভজিত মাইতি বলেন, এটা শুভঙ্করের উপর বর্বরোচিত আক্রমণ। শুভঙ্কর একজন সাধারণ পরিবেশকর্মী। পরিবেশ বাঁচানোর জন্য একটা অপারেশনে বন দপ্তরকে সহায়তা করেছিল। সেখানে সে বেআইনি পাখি ব্যবসায়ীকে হাতেনাতে ধরে ফেলেছিল। সেখানে শুভঙ্করকে বনবিভাগ ক্রেতা হিসেবে ব্যবহার করেছিল।

সেই ঘটনায় শুভঙ্কর টার্গেট হয়ে যায়। এরপরেই বছরের প্রথমে ঘটে এমন বর্বরোচিত ঘটনা। ওকে প্রচন্ড মারধর করে দুষ্কৃতিরা। এই বিষয়টা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। কারণ শুধু শুভঙ্কর নয়। এই পরিবেশ মঞ্চে কয়েক হাজার কর্মী কাজ করছে। এর ফলে পরিবেশকর্মীদের ওপর যারা এই অন্যায় করে তাদের রাগ থাকে। এই রাগের ফলে কোনও সময় টার্গেট হয়ে যায়। পরিবেশকর্মীদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে হবে সরকারকে। এই ব্যাপারে পাঁচলা থানায় ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে। গ্রামীণ এসপির কাছে ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে। আমরা অপেক্ষা করছি সরকার এই ব্যাপারে কিছু করে কিনা।