এই মুহূর্তে কলকাতা

জল জীবন মিশনের আওতায় বাড়ি বাড়ি পানীয় জল পৌঁছাতে আরেক ধাপ এগোলো রাজ্য।


কলকাতা, ১৮ ডিসেম্বর:- জল জীবন মিশনের আওতায় বাড়ি বাড়ি পানীয় জল পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা যথাসময়ে পূরণ করার দিকে আরেকধাপ এগুলো রাজ্য সরকার। জলজীবন মিশনের মাধ্যমে ২০২৪ সালের মধ্যে গ্রামবাংলার ১ কোটি ৮৩ লক্ষ ৫৩ হাজার বাড়িতে বিশুদ্ধ পানীয় জল পৌঁছনোর লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতর সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই ৭০ লক্ষের বেশি পানীয় জলের সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের ৪০ শতাংশের বেশি গ্রামীণ পরিবার পানীয় জলের সংযোগ পেয়েছে বলে দফতরের তরফে জানানো হয়েছে। আরও প্রায় ১ কোটি বাড়িতে যাতে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পানীয় জলের সংযোগ পৌঁছে দেওয়া যায় তা নিশ্চিত করা হচ্ছে। রাজ্যের জনস্বাস্থ্য কারিগরি মন্ত্রী পুলক রায় জেলায় জেলায় গিয়ে জল জীবন মিশন প্রকল্পের অগ্রগতি খতিয়ে দেখছেন।

প্রতি জেলার কাজ কর্ম পর্যালোচনা করে কাজ শেষ করার আলাদা আলাদা সময় সীমা বেঁধে দেওয়া হচ্ছে। এর আগে জল জীবন মিশন প্রকল্পের আওতায় বাড়ি বাড়ি পানীয় জলের সংযোগ দেওয়ার কাজ নির্দিষ্ট সময়ে শেষ করতে রাজ্যের জনস্বাস্থ্য কারিগরী দফতর সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দফতর ও সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় বাড়াতে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম চালু করছে। ২০২৪ এর ডিসেম্বর মাসের মধ্যে যাতে রাজ্যে প্রতিটি পরিবারে পানীয় জলের সংযোগ পৌঁছায় তা নিশ্চিত করতে রাজ্যের পূর্ত, সেচ, ক্ষুদ্র সেচ ও জনস্বাস্থ্য কারিগরী দফতরকে যৌথ ভাবে কাজ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রেল, জাতীয় সড়ক এবং কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজ্যের জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরকে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় দিনকয়েক আগে উত্তরবঙ্গ থেকে জল জীবন মিশনের কাজে গতি আনার নির্দেশ দেন। তিনি বলেন, ”পুরুলিয়ায় এখনও কষ্ট আছে জলের। কিন্তু জাইকা কাজ করছে ধীরে৷ প্রধানমন্ত্রী জল নিয়ে বিজ্ঞাপন করছেন৷ করুন, আমার আপত্তি নেই। কিন্তু জমি থেকে এস্টাবলিশমেন্টের খরচ সব রাজ্যের৷ প্রায় ৭০ লাখ বাড়িতে জল পৌঁছে গিয়েছে। আগামী কয়েকদিনে এক থেকে দেড় কোটি বাড়িতে পানীয় জল পৌঁছে যাবে। “