এই মুহূর্তে জেলা

বড় দলে মতানৈক্য থাকতেই পারে, দল হাওড়ায় মন্তব্য অরূপ রায়ের।


হাওড়া, ৭ মে:- তৃণমূলের নবজোয়ার কর্মসূচি ঘিরে কখনো উত্তেজনা, কখনো বচসা, আবার কোথাও ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে পড়ছেন তৃণমূল কর্মীরা। মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলা থেকে শুরু করে বিভিন্ন জায়গায় বিশৃঙ্খলা দেখা যাচ্ছে। রবিবার এই নিয়ে সাংবাদিকেরা মন্ত্রী অরূপ রায়কে প্রশ্ন করলে তিনি সরাসরি বলেন, আমাদের বড়ো দল। লক্ষ লক্ষ কর্মী। একটু মতানৈক্য থাকতেই পারে। দল এগিয়ে যাবে। সাংবাদিকেরা এদিন মন্ত্রী অরূপ রায়কে প্রশ্ন করেন, যত দিন এগিয়ে চলেছে দেখা যাচ্ছে নবজোয়ার প্রকল্প ঘিরে কোথাও ব্যালট পেপার ছিনতাই কোথাও ঝামেলা প্রতিদিনই বাড়ছে। এর উত্তরে অরূপ রায় বলেন, “এগুলো হতেই পারে। এটা কোনও ব্যাপারই নয়। আমাদের বড়ো দল। দলে লক্ষ লক্ষ কর্মী। একটু মতানৈক্য থাকতেই পারে। দল এগিয়ে যাবে। এবং আগামী দিনে দল অত্যন্ত ভালো ফল করবে।” রাজ্যের ডিএ আন্দোলন ক্রমশ শক্তিশালী হচ্ছে এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে এদিন অরূপ রায় সরাসরি এর জবাব দিতে চাননি।

অন্য এক উদাহরণ টেনে এর জবাব দেন। তবে শুভেন্দু অধিকারী যে দাবি করেছেন “নো ভো, নো মমতা” এটা নিয়ে অরূপ রায় বলেন, “কে কী বললো তাতে কিছু যায় আসে না।” এদিন সকালে হাওড়ায় এক অনুষ্ঠানে এসে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সবুজের মিছিল এর শুভ সূচনা করেন মন্ত্রী। মূলত এদিন থেকেই এই সংস্থা তার পথচলা শুরু করল। এই সংস্থার মাধ্যমে হাওড়া জেলার প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে শুরু করে শহরে সবুজায়নের লক্ষ্যে গাছ বসানো হবে। বিভিন্ন জায়গায় বৃক্ষরোপণ করা হবে। এর উদ্বোধন করে মন্ত্রী অরূপ রায় বলেন, আমাদের লক্ষ্য প্রতিদিন গাছ বসানো। ছোট, বড় বিভিন্ন আকারের গাছ বসানো হবে। সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন বিভিন্ন জায়গায় গাছ কেটে বহুতল নির্মাণ করা হচ্ছে। কোথাও জলাশয় বুঝিয়ে ফেলা হচ্ছে। এর উত্তরে অরূপ রায় বলেন, অনেক সময় প্রয়োজনে গাছ কাটতে হয়। অনেক সময় জলাশয় বোজাতে হয়। কিন্তু লক্ষ্য রাখতে হবে একটি গাছ কাটলে পাশাপাশি ১০টি গাছ লাগাতে হবে এবং একটি জলাশয় কোনো কারণে বোজানো হলে সম মাপের জলাশয় তৈরি করতে হবে।