এই মুহূর্তে কলকাতা

আবাস যোজনায় বাড়ি তৈরীর অনুমোদনের সময়সীমা বাড়লো।


কলকাতা, ২৪ জানুয়ারি:- রাজ্যের যুক্তির কাছে মাথা নিচু করে আবাস যোজনায় বাড়ি তৈরির অনুমোদন দেওয়ার সময়সীমা বাড়লো। ৩১শে জানুয়ারি পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনার অধীনে বাড়ি তৈরির অনুমোদন দেওয়া যাবে বলে কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের তরফে রাজ্যকে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে। আগে ওই সময়সীমা ছিল ৩১শে ডিসেম্বর। আবাস যোজনা প্রকল্পের অনুমোদন ও বরাদ্দ নিয়ে দীর্ঘ দিন টালবাহানা করছে কেন্দ্র। টাকার বদলে চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে একাধিক শর্ত। যার মধ্যে অন্যতম ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে বাড়ি তৈরির চুড়ান্ত তালিকা অনুমোদনের বিষয়টি। নবান্নের তরফে সেই সময়সীমা বাড়ানোর আর্জি রাখা হয়েছিল। কিন্তু কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রক প্রথম দফায় সেই আর্জি খারিজ করে দেয়। এবার যদিও সেই সময়সীমা বাড়ালো কেন্দ্র। তবে শুধু এরাজ্য নয়, বাকি সব রাজ্যের জন্যই বাড়ছে সময়সীমা। জানা গেছে কেন্দ্রীয় বরাদ্দ পেয়েও বাড়ি তৈরির অনুমোদন দেওয়ার ক্ষেত্রে একাধিক রাজ্য পিছিয়ে পড়েছে।

বিশেষত উত্তর প্রদেশর মত রাজ্যগুলি ও এখনো পর্যন্ত গ্রামীন আবাস যোজনার লক্ষাধিক অনুমোদন বকেয়া রয়েছে। সেক্ষেত্রে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে বাড়ি তৈরির অনুমোদন না দেওয়া হলে সেই রাজ্যের কোটা অন্য রাজ্যে চলে যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে অন্যান্য রাজ্যগুলিরও বরাদ্দ কোটা অন্য রাজ্যে চলে যেতে পারে। তার জন্যই এই বাড়ি তৈরির অনুমোদন দেওয়ার সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে বলেই দাবি নবান্নের আধিকারিকদের একাংশের। প্রসঙ্গত ৩১ শে ডিসেম্বর এর মধ্যে রাজ্যের বরাদ্দ হওয়া ১১ লক্ষ ৩৬ হাজার ৪৮৮ টি বাড়ি তৈরির অনুমোদন দেওয়ার কাজ শেষ করতে হবে। না হলে পড়ে থাকা বরাদ্দ চলে যাবে অন্য রাজ্যের কাছে। এমনই একগুচ্ছ শর্ত দিয়ে গত ২৪ শে নভেম্বর পশ্চিমবঙ্গ কে আবাস যোজনা প্রকল্পের বরাদ্দ দেয় কেন্দ্র। রাতদিন এক করে রাজ্য প্রশাসনের তরফে আবাস যোজনার বাড়ি অনুমোদনের জন্য নেমে পড়ে। ১০ লক্ষ ৫০ হাজার বাড়ি তৈরির অনুমোদন দিয়ে দেওয়া হয়। নাম বাদ দেওয়া হয় একাধিক উপভোক্তাদের তালিকা থেকে। বিভিন্ন জেলায় বিক্ষিপ্তভাবে বিক্ষোভ এর ঘটনা ঘটে।

নবান্নের আধিকারিকদের ব্যাখ্যা সারা দেশে এখনো পর্যন্ত প্রায় ১৪ লক্ষ বাড়ি তৈরির অনুমোদন দেওয়া যায়নি। তবে অনুমোদনের সময়সীমা বাড়ানো হলেও প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনায় কেন্দ্রের তরফে এখনো রাজ্যকে অর্থ বরাদ্দ করা হয়নি। যা নিয়েও কেন্দ্র-রাজ্য দড়ি টানাটানি চলছে। আপাতত গ্রামীণ আবাস যোজনার অধীনে বাড়ি তৈরির অনুমোদনের কাজ শেষ হলেও কেন্দ্রীয় বরাদ্দ না আসায় বাড়ি তৈরির কাজ কার্যত থমকে রয়েছে। উল্টে কেন্দ্রীয় গ্রাম উন্নয়ন মন্ত্রকের তরফে রাজ্যকে চিঠি পাঠিয়ে একাধিক প্রশ্নমালার উত্তর চাওয়া হয়েছে। বিশেষত আগের দেওয়া টাকার হিসেব দিতে বলা হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। তারপরেই পরবর্তী কিস্তির টাকা দেওয়া হবে রাজ্যকে। ইতিমধ্যেই আবাস যোজনায় কেন্দ্র কেন টাকা দিচ্ছে না তা নিয়ে ফের সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্রকে কড়া আক্রমণও করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি আবাস যোজনা নিয়ে ইতিমধ্যেই রাজ্যে কেন্দ্রীয় দল পরিদর্শন ও করে গিয়েছে।