এই মুহূর্তে কলকাতা

দু’বছর পর দিল্লিতে প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজে সামিল বাংলা ট্যাবলো।


কলকাতা, ৭ জানুয়ারি:- দুবছর পর দিল্লির সাধারণতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজে সামিল হচ্ছে বাংলার ট্য়াবলো। ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড ইনট্যানজিবল হেরিটের তকমা প্রাপ্তির বিষয়টিকে সামনে রেখে রাজ্যের দুর্গা পুজোকে এবার সাধারণতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজে তুলে ধরার প্রস্তাব দিয়েছে রাজ্যসরকার। নবান্ন সূত্রে খবর কেন্দ্রের সেই সংক্রান্ত কমিটি সংশ্লিষ্টবিষয় ভাবনাকে স্বীকৃতি দিয়েছে। কিন্তু তা স্বত্তেও পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছেনা। কারণ রাজ্যের তথ্য সংস্কৃতি দফতরের কর্তারা জানাচ্ছেন কেন্দ্রের নতুন নিয়মে কুচকাওয়াজের এক দিন আগেও ট্যাবলো বাতিল করে দেওয়া হতে পারে। ট্য়াবলো নিয়ে বাংলার বঞ্চনার ইতিহাসও নতুন নয়। এর আগে দুবার বাংলার ট্যাবলো বাতিল করে দিয়েছে কেন্দ্রের মোদি সরকার। ২০২০ সালে রাজ্যের প্রস্তাবিত ট্যাবলো বাতিল করে দেওয়া হয়।

প্রস্তাবিত ওই ট্যাবলোর বিষয় ভাবনা ছিল রাষ্ট্রপুঞ্জের পুরস্কার প্রাপ্ত কন্যাশ্রী প্রকল্প।কেন্দ্রের তরফে যুক্তি দেওয়া হয় সরকারি প্রকল্পের প্রচার করা যাবেনা কুচকাওয়াজে। একুশে স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে নেতাজি ও আজাদ হিন্দ ফৌজের ওপর ট্যাবলো দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয় রাজ্যের তরফে। সেই ট্যাবলোও দিল্লির মান্যতা পায়নি।সে বিষয়ে কিছু জানানোও হয়নি প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে। পরে রাজ্য সরকারের তরফে খোঁজ করা হলে মৌখিক ভাবে ট্যাবলো বাতিলের কথা জানানো হয়।এবছর অবশ্য দুর্গাপুজো নিয়ে রাজ্যের ট্যাবলোর প্রস্তাব ফেলতে পারেনি কেন্দ্র। রাজ্য সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী দুর্গাপুজো বিষয় ভাবনার ওই ট্যাবলোতে দুর্গাপুজো,ঢাকি, ধুনুচি নাচের মতো পুজোর নানা অনুষঙ্গ থাকবে।নাচ-গানে ফুটিয়ে তোলা হবে পুরো দস্তুর দুর্গাপুজোর আবহ। ট্যাবলোর মাঝখানে থাকবে দুর্গা প্রতিমা। থাকবে ঢাকি ও ধুনুচি নাচের মডেল। লালপাড় শাড়ি পরে শাঁখ বাজিয়ে মহিলাদের মাকে বরণের দৃশ্য ও সিঁদুর খেলার অনুষঙ্গও তুলে ধরা হবে বলে জানা গেছে।