এই মুহূর্তে জেলা

গার্ডেনরিচের ছায়া চুঁচুড়ায়।


হুগলি, ৩ এপ্রিল:- চুঁচুড়া খাদিনার মোড়ে গার্ডেন রিচের ছায়া। বহুতল তৈরীর জন্য জেসিবি নামিয়ে মাটি খোঁড়া চলছিল। গভীর গর্ত করে মাটি কাটায় দুই পাশে ধস। ফাটল দেখা দিয়েছে পাশের একটি দোতলা বাড়িতে।আতঙ্কিত বাসিন্দারা। ঘটনা স্থলে বিধায়ক, পুলিশ, পুরসভার প্রতিনিধিরা। নির্মানকর্মি প্রমোটারের লোকজন পলাতক। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উত্তর ২৪ পরগণার প্রমোটার অনিমেষ দাস চুঁচুড়া খাদিনার মোড়ে জিটি রোড লাগোয়া প্রায় পাঁচ কাঠা জমিতে বহুতল নির্মানের জন্য পাইলিং এর কাজ শুরু করেন। দিন পাঁচেক ধরে জেসিবি নামিয়ে মাটি খোঁড়া চলছিল। গভীর গর্ত খু্ঁড়ে মাটি তুলতে থাকায় জমি লাগোয়া একটি দোতলা বাড়ির সীমান পাঁচিল ধসে যায়।জমির উত্তর দিকের রাস্তাও ধসে যায়। জমি লাগোয়া বাড়িটিতে স্বপ্না দে ও তার মেয়ে তাপসী দে থাকেন।

সেই বাড়ির দোতলা, ছাদ, সিঁড়ি, শৌচালয়, রান্না ঘরে ফাটল দেখা দিয়েছে। খবর পেয়ে চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদার, হুগলি চুঁচুড়া পুরসভার পূর্ত দপ্তরের সিআইসি সৌমিত্র ঘোষ পৌঁছে যান। আসে চুঁচুড়া থানার পুলিশ। বিধায়ক জানান, প্রমোটারের বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যে বাড়িটি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তার ক্ষতিপূরন দিতে হবে বলে দাবী করেন তাপসী দে। বাড়িটিতে যে ভাবে ক্ষতি হয়েছে তাতে বসবাস করা নিয়েও দুশ্চিন্তায় রয়েছেন বৃদ্ধা ও তার মেয়ে। সিআইসি সৌমিত্র ঘোষ বলেন, পুরসভা নিয়ম মেনে অনুমতি দিয়েছিল। সেই মত কাজ চলছিল কিনা তা দেখা হবে। যে ভাবে ধস ও ফাটল দেখা দিয়েছে তাতে মনে হচ্ছে নিয়ম মেনে কাজ হয়নি। নির্মান করার সময় পাশের জমি বা বাড়ি যাতে সুরক্ষিত থাকে সেটা দেখার নিয়ম।তা এখানে হয়নি। আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।