এই মুহূর্তে জেলা

পুরভোটের আগে ফের অস্বস্তি, হাওড়া পুরনিগমে বাস্তুকারদের বিক্ষোভ।


হাওড়া, ১১ জানুয়ারি:- দীর্ঘ কুড়ি বছর, কেউ বা তার চেয়েও বেশি সময় ধরে পুরনিগমের বাস্তুকার পদ মর্যাদাতে কর্মরত রয়েছেন। কিন্তু অবসরের সময় বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা কমিয়ে দেওয়ার কথা জানতে পেরে এবার ক্ষোভে ফেটে পড়েন পুরনিগমের কর্মরত বাস্তুকারেরা। তাদের অভিযোগ ১৯৮৬ সালের পর থেকে যাদেরকে সরকারি নিয়ম অনুযায়ী চাকুরিতে বহাল করা হয়েছিল। তাঁদেরকে অনৈতিকভাবে এখন তাদের বেতনক্রম ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা কাটছাঁটের রাস্তায় হাঁটছে পুরনিগম। তিরিশ পঁয়ত্রিশ বছর পরিষেবা দেওয়ার পরে অবসরের সময় প্রাপ্য অর্থ না পাওয়াতে ভীষণ সমস্যাতে পড়তে হচ্ছে তাদের। বুধবার দুপুরে হাওড়া পুরনিগমে মুখ্য প্রশাসকের অফিসের সামনে তাঁরা বিক্ষোভ দেখান।

এদের বক্তব্য এর আগে মুখ্যমন্ত্রীকে দুবার চিঠি লিখে তাদের সমস্যার কথা জানিয়েছিলেন। তবে কোনো উত্তর তাঁরা পাননি। তাঁরা আজকে স্মারকলিপি জমা করেছেন। এতে না মিটলে আগামীদিনে ঘেরাও, রিলে অনশন কর্মসূচির পথে হাঁটবেন তাঁরা। যদিও বুধবারের বিক্ষোভ প্রসঙ্গে মুখ্য পুর প্রশাসক ডাঃ সুজয় চক্রবর্তী জানান, তাঁরা এই সমস্যা নিয়ে কথা বলেছেন নবান্নের সর্বোচ্চ স্তরের অধিকারিকদের সঙ্গে। তাঁরাও বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে সহানুভূতির সঙ্গে দেখছেন। আন্দোলনকারীদের সঙ্গেও আলোচনা হয়েছে। প্রয়োজনে আবার তাঁরা আলোচনাতে বসবেন। পাশাপাশি তিনি বলেন তাঁদের দাবি থাকতেই পারে। তার জন্য প্রতিবাদ জানানোর অনেক উপায় আছে। সাধারণ মানুষের পরিষেবা ব্যাহত হতে পারে এমন কোনও পদ্ধতি যাতে তাঁরা না নেন তার জন্য আবেদন করেন সুজয়বাবু।