এই মুহূর্তে কলকাতা

তিনজন আইপিএস অফিসারকে ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে ‘এনওসি’ দিতে হবে রাজ্যকে।

কলকাতা , ১৪ ডিসেম্বর:- বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জগত প্রকাশ নাড্ডার কনভয়ে হামলা ও তার পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা তিন আইপিএস আধিকারিক কে দিল্লিতে কেন্দ্রের ডেপুটেশনে যোগ দিতে বলার ঘটনা নিয়ে জটিলতা এখনো অব্যাহত। নবান্নের তরফে ইতিমধ্যেই ওই পুলিশ কর্তাদের ছাড়তে নিজেদের অনিচ্ছার কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তা সত্বেও জটিলতা এখনো কাটছে না। কারণ রাজ্য সরকার তাদের আপত্তির কথা জানানোর পরে দিল্লির তরফ থেকে এই নিয়ে নতুন করে কোনো উচ্চবাচ্য করা হয়নি। প্রশাসনের কেউ এ ব্যাপারে মুখ খুলতে রাজি নয়। কিন্তু প্রশাসনিক সূত্রে জানা যাচ্ছে এনিয়ে কেন্দ্রের অবস্থান জানার আগে রাজ্যের আর বিশেষ কিছু করার নেই। কারণ এ ব্যাপারে সর্বশেষ সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার রয়েছে কেন্দ্রেরই হাতে। তিন আইপিএস আধিকারিক এর দিল্লিতে রিপোর্ট করার সময়সীমা শেষ হচ্ছে আগামীকাল। তারপরেই কেন্দ্রের তরফে এ নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। নির্দিষ্ট ভাবে ডেপুটেশনে ডেকে পাঠানো তিনজন আইপিএস অফিসারকে কেন্দ্রের কাছে ‘রিপোর্ট’ করতেই হবে। রাজ্য কোনও ভাবেই তা ঠেকাতে পারবে না। বরং ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে ‘এনওসি’ দিতে হবে রাজ্যকে। মন্ত্রক-কর্তাদের বক্তব্য, আইপিএস (ক্যাডার) আইনের ৬ (১) ধারায় বলা হয়েছে, সর্বভারতীয় ক্যাডারের অফিসারদের নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্যের মধ্যে মতানৈক্য থাকলে কেন্দ্রের ইচ্ছা বা সিদ্ধান্তই মানতে হবে। এই তত্ত্বে সংশ্লিষ্ট মহলের দাবি, বিষয়টির শেষ দেখতে চাইছে মন্ত্রক।

গত বৃহস্পতিবার ডায়মন্ড হারবারে সভা করতে যাওয়ার সময় জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলা চালানো হয়। রাস্তার ধার থেকে ছোঁড়া ইট পাথরে কৈলাস বিজয়র্গীয় সহ বেস কয়েকজন বিজেপি নেতার গাড়ির কাঁচ ভাঙে। রাজ্যপাল ও বিজেপি নেতাদের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের পর্যবেক্ষন তিন আইপিএস আধিকারিক অর্থা‍ৎ এডিজি(দক্ষিণবঙ্গ) রাজীব মিশ্র, ডিআইজি(প্রেসিডেন্সি রেঞ্জ) প্রবীণ ত্রিপাঠী ও ডায়মন্ডহারবার পুলিশ জেলার সুপার ভোলানাথ পাণ্ডে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির নিরাপত্তার যে দায়িত্বে ছিলেন তা তাঁরা দায়িত্ব সহকারে সঠিক ভাবে পালন করেননি। তাই তাঁদের দিল্লিতে ফেরত আনা হচ্ছে। কিন্তু সেই ফেরত আনার প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে নবান্ন। প্রশাসনের তরফে প্রকাশ্যে কোন মন্তব্য করা হয়নি। তবে নবান্ন সূত্রে জানা গেছে ওই আধিকারিকদের ছাড়া হবে না, তাঁদের নো অবজেকশান সার্টিফিকেট বা এনওসি’ও দেওয়া হবে না। রাজ্য সরকারের ছাড়পত্র না পেলে ওই আধিকারিকেরা না বাংলা ছেড়ে যেতে পারবেন না অন্য কোথাও যোগদান করতে সমস্যা হবে। নবান্নের দাবি রাজ্য সরকার এই সার্টিফিকেট দিতে বাধ্য নয়। প্রশাসনের অলিন্দে এ ধরের ঘটনা অভূতপূর্ব বলে প্রশাসনিক মহলের দাবি। সেক্ষেত্রে আগামী দিনে এই স্নায়ুর লড়াইয়ে কে জেতেন সেদিকে সকলেই নজর রাখছেন।